‘হাই টি পার্টি’ মিটাপ ও সেমিনার ২০২১

‘হুর নুসরাত পরিবার’

প্রকাশিত: ৩:৫৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৬, ২০২১ | আপডেট: ৩:৫৭:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৬, ২০২১

কেয়া আমান 

 

 

বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় অনলাইন শপ ‘হুর নুসরাত’-এর রিলেটেড গ্রুপ ‘হুর নুসরাত পরিবার’ দেশের বিভিন্ন জেলার অনলাইনভিত্তিক নারী উদ্যোক্তাদের নিয়ে ‘হাই টি পার্টি’ নামে একটি মিটাপ এবং সেমিনারের আয়োজন করে। ‘দি রেইনট্রি ঢাকা’ হোটেলে এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দিনব্যাপী এই মিটাপ এবং সেমিনারটি অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানটিতে বিভিন্ন জেলার অনলাইন নারী উদ্যোক্তারা ‘হুর নুসরাতের’ কর্ণধার ও নারী উদ্যোক্তা নুসরাত আক্তার লোপার সঙ্গে অনলাইন ব্যবসার বিভিন্ন দিক, পরামর্শ, অভিজ্ঞতা আদান-প্রদানের পাশাপাশি সেমিনারে অংশগ্রহণ করেন।

সেমিনার আলোচনায় অংশ নেন কণ্ঠশিল্পী এবং অভিনেত্রী আঁখি আলমগীর, মডেল ও অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া, ‘নিজের বলার মতে একটা গল্প ফাউন্ডেশন’-এর ফাউন্ডার অ্যান্ড প্রেসিডেন্ট ইকবাল বাহার জাহিদ, ডিএমপি’র সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিভিশনের এডিশনাল ডিপুটি কমিশনার নাজমুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ও সহযোগী অধ্যাপক ডা. জাহানারা আরজু, মডেল, উপস্থাপিকা ও নৃত্যশিল্পী বারিশ হক, মেকাপ আর্টিস্ট ও স্মার্ট শপিং বিডির ওনার আফরিন আনিস রহমান, ফাউন্ডার এবং ইথিক্যাল স্পিকার অফ ‘হাল ছেড় না বন্ধু’ এবং অফ সি এম সার্ভিসিং স্টেশনের ম্যানেজিং ডিরেক্টর চন্দা মেহজাবিন। আলোচকদের হাতে তাদের কাজের কৃতিত্বস্বরূপ ক্রেস্ট তুলে দেন হুর নুসরাতের কর্ণধার নুসরাত আক্তার লোপা। অনুষ্ঠানটির প্লাটিনাম স্পন্সর ছিল ‘সিগনেচার কালেকশন’।

নারী উদ্যোক্তাদের জন্য একটি বিশ্বস্ত মার্কেটপ্লেস তৈরি এবং তাদের বিজনেস সংক্রান্ত সহযোগিতার উদ্দেশ্যে তিনি পরে ‘হুর নুসরাত পরিবার’ নামে একটি পেজ চালু করেন। যেখানে তিনি নবীন ও পিছিয়ে পড়া অনলাইনভিত্তিক নারী উদ্যোক্তাদের অনলাইন বিজনেসের নানা বিষয় শেখানো, সেল বাড়ানো, প্রোমোট করাসহ বিভিন্ন সহযোগিতা করে থাকেন।

পাশাপাশি ক্রেতাদের জন্য আস্থাযোগ্য পণ্য পরিচিতিও তুলে ধরেন। বর্তমানে হুর নুসরাত পরিবারের ৪৪ হাজার নারী সদস্য রয়েছে। এর মধ্যে বিভিন্ন জেলার প্রায় ২০০ জন অনলাইন নারী উদ্যোক্তা রয়েছেন।

নুসরাত আক্তার লোপা বলেন, ‘আমি আগামীতে নতুন ও ছোট ছোট অনলাইন পেজের নারী উদ্যোক্তাদের জন্য আরও বড় পরিসরে কাজ করতে চাই এবং তাদের পাশে থেকে এগিয়ে নিতে চাই।’