নরেন্দ্র মোদিকে ‘লাল কার্ড’ দেখাল ছাত্র ফেডারেশন

প্রকাশিত: ৩:০২ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০২১ | আপডেট: ৩:০২:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০২১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়-ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ‘সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষ সৃষ্টিকারী ফ্যাসিস্ট’ বলে আখ্যা দিয়েছে গণসংহতি আন্দোলনের ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন৷ বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদিকে অতিথি করার প্রতিবাদ জানিয়ে মোদিকে ‘লাল কার্ড’ দেখিয়েছেন সংগঠনটির নেতা-কর্মীরা৷

আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে আয়োজিত এক সমাবেশ থেকে এ প্রতিবাদ জানান ছাত্র ফেডারেশনের নেতা-কর্মীরা।

সভাপতির বক্তব্যে জাহিদ সুজন বলেন, ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে ফ্যাসিস্ট নরেন্দ্র মোদির আগমন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সাথে সাংঘর্ষিক। আমরা আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের সম্মানকে অক্ষুণ্ন রাখতে আমাদের সাধ্যের সর্বোচ্চটুকু দিয়ে সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে তাঁর আগমনকে রুখে দেওয়ার চেষ্টা করব। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে কাদের অতিথি করা হবে, তা রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আলোচনার মাধ্যমেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। গত ১৫ বছরে সীমান্তে পাখির মতো গুলি করে সহস্রাধিক বাংলাদেশি নাগরিককে হত্যা করেছে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী৷ সীমান্তে ফেলানী হত্যাসহ সব ধরনের হত্যাকাণ্ডের বিচার ও সীমান্ত হত্যাকাণ্ড বন্ধের দাবি জানাই আমরা৷’

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদিকে অতিথি করার প্রতিবাদ জানিয়ে মোদিকে ‘লাল কার্ড’ দেখিয়েছেন  বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের নেতা-কর্মীরা

বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদিকে অতিথি করার প্রতিবাদ জানিয়ে মোদিকে ‘লাল কার্ড’ দেখিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের নেতা-কর্মীরা

ছাত্র ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জাহিদ সুজন সরকারের সমালোচনা করে বলেন, ‘আমাদের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে ইতিমধ্যেই নিশ্চিত করেছেন যে আসছে সফরে তিস্তা চুক্তিসহ আমাদের নিজেদের স্বার্থসংশ্লিষ্ট কোনো চুক্তি নিয়েই কথা বলবেন না৷ এই জনসমর্থনহীন সরকার তার গদি টিকিয়ে রাখতে ভারতের কাছে দেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিচ্ছে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আমরা দেশের মানুষের কাছে আহ্বান জানাই, এই স্বৈরাচারী সরকারের পতনের দাবিতে আপনারা রাস্তায় নেমে আসুন৷ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী আমরা পালন করব মুক্ত গণতান্ত্রিক বাংলাদেশে৷’

ঢাকা মহানগর শাখা ছাত্র ফেডারেশনের আহ্বায়ক সৈকত আরিফ বলেন, ‘বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের চার মূলনীতির অন্যতম নীতি হচ্ছে অসাম্প্রদায়িকতা৷ কিন্তু আমরা অত্যন্ত আশ্চর্যের সঙ্গে লক্ষ করছি, মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ফ্যাসিস্ট নরেন্দ্র মোদিকে অতিথি করা হচ্ছে৷ এর মধ্যে দিয়ে সরকার মূলত বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের যে মৌলিক চেতনা, তার সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে৷ বর্তমান ভোটারবিহীন সরকার তার গদি টিকিয়ে রাখতে বাংলাদেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে ভারতের সাথে বিভিন্ন অধীনতামূলক চুক্তি করছে৷ আমরা অবিলম্বে সব চুক্তি জনসম্মুখে প্রকাশ করার দাবি জানাই ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে সাম্প্রদায়িক ফ্যাসিস্ট নরেন্দ্র মোদিকে অতিথি তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার দাবি জানাই।’

ছাত্র ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মশিউর রহমান খানের সঞ্চালনায় সমাবেশে অন্যদের মধ্যে সংগঠনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সজীব, সংগঠক সজীব ওয়াফী প্রমুখ বক্তব্য দেন।